বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
গজারিয়ায় এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ মুন্সীগঞ্জে শ্রীনগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাংবাদিকের উপর হামলা, থানায় অভিযোগ সৌদিতে এটিএম মেশিন ভাঙার অভিযোগে ৩ ভারতীয় নাগরিক গ্রেফতার চট্টগ্রামে নির্ধারিত সময়ের আগেই কোরবানির পশুর বর্জ্যমুক্ত ফুলবাড়িতে ৩শ পরিবারের মাঝে ঈদের মাংস বিতরন সাতক্ষীরায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু-২ তাহিরপুর উপজেলা বাসীকে ঈদ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন,ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি’ শেখ মোস্তফা মাওলানা নরুল হক সাহেব এর নামাজে জানাযা ও দাফন সম্পন্ন পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইউনিয়ন আ: লীগের সভাপতি কাজী সজল দেশ বাসীকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন,বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.আবুল হোসেন খান

ইজারা মূল্যসহ অন্যান্য করাদী পরিশোধ করেও জলমহল বুঝে পেল না গ্ৰহীতা।

রিপোর্টার নামঃ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০২২
  • ৩৪৪ বার পঠিত

আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ

 

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের বেউলা মৌজার বেউলা খাল জলমহলের ইজারা মূল্যসহ অন্যান্য করাদী পরিশোধ করেও জলমহলের দখল বুঝে পেল না গ্ৰহীতা কুঁন্দুড়িয়া মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি সঞ্জয় মন্ডল। উপজেলা ও ইউনিয়ন ভুমি অফিসের কর্মকর্তাদের উদাসীনতায় একদিকে যেমন নিঃস্ব হচ্ছে সঞ্জয় মন্ডলের মত মৎস্যজীবীরা অন্য দিকে বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতায় হয়রানি ও মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে এলাকার কৃষক ও মৎস্য চাষিরা। ভুমি অফিসের কর্মকর্তাদের এই উদাসীনতার সুযোগে এক শ্রেনীর জলমহলদস্যুরা ইজারা উপযুগী এবং উন্মুক্ত জলমহল গুলো জবর দখলে নিয়ে নেটপাটা এমনকি বেড়িবাঁধ দিয়ে মৎস্য চাষ করে এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করছে। অধিকাংশ ক্ষেতে দেখা গেছে এ সকল জলমহলদস্যুদের পর্দার আড়ালে থেকে সহযোগিতা করে থাকে দু’এক জন প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতা। জানা গেছে, উপজেলা জলমহল ব্যবস্থাপনা কমিটির ০৬/০৭/২০২০ তারিখের সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বেউলা মৌজার ০১নং খাস খতিয়ানের সাবেক ৪১, ৫৫৩, ৫৩৭, ১৮১১, ২১১১, ২১৫৬ ও ২১৩৫ দাগের ১৩.৯৫ একর খাস সম্পত্তি ১৪২৭ থেকে ১৪২৯ বঙ্গাব্দ অর্থাৎ ৩ বছর মেয়াদে কুঁন্দুড়িয়া মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি সঞ্জয় মন্ডলের অনুকূলে সর্বচ্ছ মুল্যে ইজারা প্রদান করা হয়। ৩১.৪৪.৮৭০৪.০০০.০১০.০০৩.২০-৬২৫ নং স্মারকে ইউনিয়ন সহকারী ভুমি কর্মকর্তা, তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ইজারা গ্ৰহীতার আনুকুলে জলমহলটির দখল বুঝিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। তারপরও সরকারি খাতে ইজারা মূল্যসহ অন্যান্য করাদী পরিশোধ করে জলমহল বুঝিয়ে দেয়া হয়নি গ্ৰহীতাকে। সর্বশেষ সঞ্জয় মন্ডল ইজারাকৃত খাস জলমহল থেকে অবৈধ দখলদার কুল্যা গ্ৰামের সিরাজুল ইসলাম, বেউলা (গাজীর হাট) গ্ৰামের তুহিন গাজী, ফজলুর রহমান ও লাভলুকে উচ্ছেদ পূর্বক দখল বুঝে পেতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রেক্ষিতে এবং সরকারি খাতে পরিশোধ কৃত ইজারা মূল্যসহ অন্যান্য করাদী ফিরে পেতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তার দপ্তরে বারবার ধর্ণা দিয়ে অবশেষে গত ১৬জুন সহকারী কমিশনার ভূমি শাহিন সুলতানার নির্দেশে ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ও এসিল্যান্ড অফিসের সার্ভেয়ার দুজনে মিলে সঞ্জয় মন্ডলকে দখল বুঝিয়ে দিতে সরেজমিনে আসতে গিয়ে মাঝপথ থেকে ফিরে গিয়ে ইজারা গ্ৰহীতা সঞ্জয় মন্ডলকে উল্লেখিত খাস সম্পত্তিতে বৈউলা গ্ৰামের মৃত নূর মোহাম্মদ এর ছেলে নাসির উদ্দিন (বর্তমান ঠিকানা কাটিয়া, সাতক্ষীরা সদর উপজেলা) কর্তৃক জেলা জজ আদালত সাতক্ষীরাতে দেং আঃ- ৪১/২০১৫ নং মোকদ্দামায় ২নং আদালতে সরকার পক্ষে রায়ের ডিগ্ৰীর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে নালিশি ভূমি বাবদ বিগত ইং ০৩/০১/২০১৯ এবং পুনরায় ১৪/১১/২০২১ তারিখের স্থিতিবস্থা আদেশের কথা বলেন।
বুধহাটা ইউপি চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক মাহবুবুল হক ডাবলু বলেন, এভাবে প্রকৃত ইজারা গ্ৰহীতাকে দখল বুঝিয়ে না দিয়ে অবৈধ দখলদারের দখলে বা অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে বেড়িবাঁধ বা নেটপাটা বসিয়ে মাছ চাষ করার কারনে বর্ষা মৌসুমে এলাকার জলাবদ্ধতা পরিস্থিতি চরম পর্যায়ে উপনীত হয়। গুটি কয়েক স্বার্থ লোভী ব্যক্তির ইন্ধনে এসব অবৈধ দখলদাররা দাপটের সাথে দিদারছে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যায়। এসব খাস সম্পত্তি বা জলমহলে একটা নাম মাত্র মামলা ঠুকে দিতে পারলেই তাদের ধারে কাছে আর কেউ ঘেঁষে না। বর্ষা মৌসুমে এলাকা নিমজ্জিত হওয়ার পূর্বেই এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্ৰহন করা অতিব জরুরী হয়ে পড়েছে।
এবিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) শাহিন সুলতানা প্রতিবেদকে জানান, আমার জানামতে উল্লেখিত জলমহলটিতে হাইকোর্টের স্থিতিবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ আছে। যার কারণে আমরা কোন পদক্ষেপ গ্ৰহন করতে পারছি না।
প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এ সকল জলমহলদস্যুদের কারনে বর্ষা মৌসুমে ফসল, মৎস্য ঘের, রাস্তাসহ ঘর বাড়ি তলিয়ে গেলে দায়ভার কে বা কারা নিবে? তাছাড়া জবর দখলের সুবিধার্থে ঐ সব নাম মাত্র মামলার স্থিতিবস্থা ভ্যাকেট করতে হাইকোর্টে যাওয়ার দায়িত্ব কে নিবে সরকার পক্ষ না জনগণ ? স্থানীয় সচেতন মহল এ ধরনের একাধিক প্রশ্নের উত্তর জানতে চায় দায়িত্বে থাকা সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাদের কাছে।
এদিকে উল্লেখিত জলমহলের দখল বুঝিয়ে দিতে অথবা সারকারি খাতে পরিশোধকৃত ইজারা মূল্যসহ অন্যান্য করাদীর সমপরিমাণ টাকা ফেরৎ পেতে যথাযথ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সঞ্জয় মন্ডল।

সাংবাদ পড়ুন ও শেয়ার করুন

আরো জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2022 Sumoyersonlap.com

Design & Development BY Hostitbd.Com

কপি করা নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ।