বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৯:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কালিগঞ্জে শিক্ষাবান্ধব ডাঃ আমিরুল ইসলাম ৬ বার এসএমসি’র সভাপতি নির্বাচিত সাংবাদিকরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আছেন, প্রয়োজনে যেকোনো কিছু করতে প্রস্তুত গাইবান্ধা জেলা আওয়ামীলীগ অফিসে হামলা ও অগ্নি সংযোগের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন সাতক্ষীরায় সদর থানা ঘেরাও চেষ্টা পুলিশের লাঠিচার্জ সাতক্ষীরা জেলা যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত জিএমপি পূবাইল থানা পুলিশের অভিযানে ০৭ কেজি গাজাসহ গ্রেফতার-০১ সাতক্ষীরায় স্টাটিকস শিক্ষা সহায়ক সংস্থার শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অবশেষে কোটা সংস্কারের দাবি মানলেন সরকার কোটা আন্দোলনে ঢাকায় পুলিশের গুলিতে সাতক্ষীরার আসিফ’র মৃত্যু বোয়াখালীতে স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির ল্যাব সহকারী কে গ্রেপ্তার

ঝালকাঠিতে পুলিশ কনস্টেবল জামাইয়ের বিরুদ্ধে শশুরকে মারধরের অভিযোগ।

রিপোর্টার নামঃ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০২২
  • ১০৯ বার পঠিত

 

মাসুমা জাহান, বরিশাল ব্যুরোঃ

শ্বশুরকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে বরিশালের বানারীপাড়া থানায় কর্মরত এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ঝালকাঠি সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আহত শেখ মো. জহিরুল ইসলামের মেয়ে মোসা. মাহামুদা বেগম।

তবে বিষয়টি মৌখিক ভাবে শুনেছেন বলে জানিয়ে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খলিলুর রহমান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে যেটুকু জেনেছি বিষয়টি পারিবারিক ভাবে সমাধানের চেষ্টা করছে উভয়পক্ষ।

এদিকে মাহামুদা বেগম ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর লেখা অভিযোগে তার স্বামী ও বরিশালের বানারীপাড়া থানায় কর্মরত পুলিশ সদস্য সোলায়মানকে প্রধান বিবাদী করেছেন। এছাড়া অপর দুই অভিযুক্ত হলেন- অভিযোগকারীর শ্বশুর ও ঝালকাঠি সদরের রামচন্দ্রপুর এলাকার বাসিন্দা সিদ্দিকুর রহমান ও শাশুড়ি নিলুফা ইয়াসমিন।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২১ সালে অভিযোগকারী মাহামুদার সঙ্গে পুলিশ কনস্টেবল সোলায়মানের বিয়ে হয়। এরপর থেকে যৌতুক হিসেবে মাহামুদার বাবার বাড়ি থেকে নগদ টাকা, মোটরসাইকেল ও জমি আনার জন্য প্রায়ই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন সোলায়মান। সর্বশেষ সোলায়মান তার বাবা-মায়ের যোগসাজেশে অভিযোগকারী মাহামুদাকে মোটরসাইকেলের দাবিতে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। সবশেষ ৮ জুলাই রাতে পুলিশ সদস্য সোলায়মান শ্বশুর শেখ মো. জহিরুল ইসলামের বাড়িতে আসেন এবং পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাগ-বিতণ্ডায় জড়িয়ে যান। একপর্যায়ে সোলায়মান ক্ষিপ্ত হয়ে ঘরের দরজার লাঠ দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকলে জহিরুলের মাথা ফেটে যায়। এসময় বাবাকে রক্ষা করতে গিয়ে মাহামুদাও মারধরের শিকার হন। পরে তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে খুন জখমের ভয় দেখিয়ে সোলায়মান ঘটনা স্থল থেকে চলে যান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পুলিশ সদস্য সোলায়মানের স্ত্রী ও অভিযোগকারী মাহামুদা বলেন, এ ঘটনার পর বাবাকে সোমবার (১১ জুলাই) রাতেই উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করি। এখন সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

এদিকে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, সোমবার থানায় গিয়ে ওসির কাছে লিখিত অভিযোগটি দিয়েছি। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানিয়েছেন। তবে এখনও এ বিষয়ে কিছু জানায়নি থানার ওই কর্মকর্তা।

সাংবাদ পড়ুন ও শেয়ার করুন

আরো জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2022 Sumoyersonlap.com

Design & Development BY Hostitbd.Com

কপি করা নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ।