বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৮:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কালিগঞ্জে জোরপূর্বক জমি দখল ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.সাইফুল ইসলাম চট্টগ্রামে ঝুট গুদামে আগুন শিবরাম আদর্শ পাবলিক স্কুলে ফল উৎসব পালিত রামপালে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে কেন্দ্রীয় বিএনপি’র অর্থ সহায়তা প্রদান  গোপালগঞ্জ মুকসুদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দ্বিতীয়বার শপথ নিলেন কাবির মিয়া বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটির রাজশাহী বিভাগীয় কমিটি ঘোষণা নন্দী ভাঙ্গনের প্রতিযোগীতায় চট্টগ্রাম  গাজীপুরে শহীদ ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ফল উৎসব ২০২৪ অনুষ্ঠিত পবিত্র ঈদুল- আযহার ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি’মো.ইমানুর মিয়া

নান্দাইলে বিদ্যালয়ের পুকুর বেদখলের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন।

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট সময় বুধবার, ২ আগস্ট, ২০২৩
  • ৪২৭ বার পঠিত

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ৪নং চন্ডীপাশা ইউনিয়নের বাশহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ শতাংশ পুকুর বেদখলের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার (২রা আগস্ট) অত্র বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনের সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম ভূইয়া। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নাসির উদ্দিন ভূঞা। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৬২ সনে ২ একর ৩৫ শতাংশ ভূমিতে বাশহাটি উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। কিন্তুু বর্তমানে অত্র বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মরহুম মনোয়ার হোসেন ভূঞার পুত্ররা (আজিজুল হক ভূঞা, এমদাদুল হক ভূঞা, আমিনুল হক ভূঞা মামুন, মাকসুদুল হক ভূঞা মাসুদ, আনোয়ারুল হক ভূঞা ও এনামুল হক ভূঞা গং) বাশঁহাটি মৌজাস্থ ৯২৬ বিআরএস খতিয়ানের ১৫০৪ নং দাগে স্থাপিত বিদ্যালয়ের পুকুরটি বেদখল দেয়। গত ২৮ জুলাই/২৩ইং বিদ্যালয়ের পুকুরে ভেকু দিয়ে মাটি খনন করেছেন মরহুম মনোয়ার হোসেন ভূঞার পুত্ররা। উক্ত পুকুরটি বিদ্যালয় স্থাপনের সময় থেকে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ভোগ দখল করে আসছিল বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ ম্যানেজিং কমিটির সদস্যগণ সাংবাদিক সম্মেলনে বিষয়টি তুলে ধরেন। তাঁরা আরও জানান যে, বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মনোয়ার হোসেন ভূঞা সুস্থাবস্থায় কখনও বিদ্যালয়ের পুকুরটি দাবী করেননি। বরং তিনি মারা যাবার পর তাঁর পুত্ররা তা বেদখল দিয়ে আসছেন।

বিআরএস রেকর্ড অনুযায়ী উক্ত পুকুরের ৫০ শতাংশ জমি বিদ্যালয়ের নামে অর্ন্তভূক্ত আছে। এ বিষয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করলেও এর কোন সুরাহায় হয়নি। ফলে অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে বিদ্যালয়ের পুকুরের জমিটুকু বেদখলকারীদের হাত থেকে রেহাই পেতে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন প্রশাসনের সর্বাত্মক সহযোগীতা কামনা করছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে মরহুম মনোয়ার হোসেন ভূঞার পুত্র সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এমদাদুল হক ভূঞা বলেন, আমার বাবা মনোয়ার হোসেন ভূঞা সহজ সরল লোক ছিলেন। ভূলক্রমে তা বিদ্যালয়ের নামে বিআরএসে রেকর্ড হয়। পরবর্তীতে তিনি (বাবা) তা জানতে পেরে বিআরএস সংশোধনী মামলা দেন এবং তা চলমান আছে। এছাড়া উক্ত পুকুরটি দুই দাগে অর্ন্তভূক্ত এবং আমরা ভোগদখল করে আসছি। এখানে বেদখলের কিছু নাই।

সাংবাদ পড়ুন ও শেয়ার করুন

আরো জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2022 Sumoyersonlap.com

Design & Development BY Hostitbd.Com

কপি করা নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ।