বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কালিগঞ্জে জোরপূর্বক জমি দখল ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.সাইফুল ইসলাম চট্টগ্রামে ঝুট গুদামে আগুন শিবরাম আদর্শ পাবলিক স্কুলে ফল উৎসব পালিত রামপালে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে কেন্দ্রীয় বিএনপি’র অর্থ সহায়তা প্রদান  গোপালগঞ্জ মুকসুদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দ্বিতীয়বার শপথ নিলেন কাবির মিয়া বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটির রাজশাহী বিভাগীয় কমিটি ঘোষণা নন্দী ভাঙ্গনের প্রতিযোগীতায় চট্টগ্রাম  গাজীপুরে শহীদ ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ফল উৎসব ২০২৪ অনুষ্ঠিত পবিত্র ঈদুল- আযহার ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি’মো.ইমানুর মিয়া

পবিত্র কাবা শরীফের পর দেশের বৃহত্তম ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতায়

সোহারাফ হোসেন সৌরাভ, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০২৪
  • ১৮৫ বার পঠিত

 

সোহারাফ হোসেন সৌরাভ, সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ

পবিত্র কাবা শরীফের পর দেশের বৃহত্তম ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতায় খান বাহাদুর আহছান উল্লাহ এর রওজা শরীফ চত্বরে ।নলতা কেন্দ্রীয় আহসানিয়ার ব্যবস্থাপনায় প্রতিদিন একসাথে ইফতার করান প্রায় ৬ হাজার মানুষের।ফকির, মিসকিন সকল পেশার মানুষ ধনী গরীব ভেদাভেদ ভুলে সকলেই একসাথে এখানে ইফতারি করেন। রোজাদারদের জন্য এখানে প্রতিদিন ৬০০ কেজি দুধ দিয়ে তৈরি করা হয় ফিরনি। সিদ্ধ করা হয় ৬ হাজার ২শত ডিম। এ ছাড়া ছোলা ভুনা, কলা, খেজুর, সিঙাড়া ও চিড়ার ব্যবস্থা থাকে। এখানে এলাকার ছোট বড় সব মিলিয়ে ২০০ জন যুবক প্রতিদিন স্বেচ্ছাশ্রমে এসব কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিটি প্লেটে সাজানো হয় কলা, খেজুর, ফিরনি, ছোলা, চিড়াসহ নানা খাবার।
নলতায় খান বাহাদুর আহছান উল্লাহ রওজা শরীফ চত্বরে ইফতার করতে আশা মুসল্লিরা বলেন আমরা দূর দুরান্ত থেকে এখানে ইফতার করতে এসেছি কারণ সবচাইতে বাংলাদেশ বৃহত্তম ইফতার মাহফিল এখানেই হয় একসাথে ইফতার করতে পেরে অনেক আনন্দ হয় এবং অনেক সওয়াবও পাওয়া যায়। তারা আরো বলেন এখানে প্রায় ৬ থেকে ৭ হাজার মানুষ ইফতার করে প্রায় ৯০ বছর ধরে এই ইফতার আয়োজন করা হয়

নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের
ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ ডক্টর নজরুল ইসলাম বলেন,১৯৫০ সাল থেকে প্রতিবছর রমজানে রওজা চত্বরে বিশাল ছাউনি তৈরি করে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। রমজান মাসব্যাপী এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করতেন হজরত শাহ সুফী খান বাহাদুর আহছান উল্লাহ। পরে তার মৃত্যুর পর মিশন কর্তৃপক্ষ এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন।করোনার আগে নলতা রওজা শরীফে প্রতিদিন ১০ হাজার মানুষের ইফতারের আয়োজন করা হতো। এখন সেটা ৬ হাজারে নেমে এসেছে আর্থিক সংকটের কারণে । সওয়াব হাসিলের জন্য দূর-দূরান্ত থেকেও ইফতারের উদ্দেশে রোজাদাররা ছুটে আসেন নলতা রওজা শরীফ প্রাঙ্গণে।

সাংবাদ পড়ুন ও শেয়ার করুন

আরো জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2022 Sumoyersonlap.com

Design & Development BY Hostitbd.Com

কপি করা নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ।