বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৮:২১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কালিগঞ্জে জোরপূর্বক জমি দখল ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.সাইফুল ইসলাম চট্টগ্রামে ঝুট গুদামে আগুন শিবরাম আদর্শ পাবলিক স্কুলে ফল উৎসব পালিত রামপালে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে কেন্দ্রীয় বিএনপি’র অর্থ সহায়তা প্রদান  গোপালগঞ্জ মুকসুদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দ্বিতীয়বার শপথ নিলেন কাবির মিয়া বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটির রাজশাহী বিভাগীয় কমিটি ঘোষণা নন্দী ভাঙ্গনের প্রতিযোগীতায় চট্টগ্রাম  গাজীপুরে শহীদ ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ফল উৎসব ২০২৪ অনুষ্ঠিত পবিত্র ঈদুল- আযহার ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি’মো.ইমানুর মিয়া

রাস্তা নির্মাণে বাধা ভোগান্তিতে বাসিন্দারা

রিপোর্টার নামঃ
  • আপডেট সময় শনিবার, ৮ জুন, ২০২৪
  • ১৭ বার পঠিত

এম, টি,রহমান মাহমুদ, গোপালগঞ্জ :

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার রামশীল ইউনিয়নের খাগবাড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ হতে বাবু পরিমল চৌধুরী বাড়ি পর্যন্ত সংযোগ সড়ক চলাচলের রাস্তা নির্মাণে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন বাসিন্দারা। এ অভিযোগ উঠেছে ওই গ্রামের মিলন হালদারের বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, খাগবাড়ি গ্রাম নিম্ন এলাকা হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে পানি জমায় চলাচলে ভোগান্তিতে পড়তে হয় এলাকার বাসিন্দাদের। ভোগান্তির কথা চিন্তা করে পরিবারের সদস্য এবং পাশের বাসিন্দাদের চলাচলের জন্য নিজ জমিতে একটি রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেন যজ্ঞেশ্বর চৌধুরী। ইতিমধ্যে রাস্তা নির্মাণের জন্য মাটি ফেলার কাজ শুরু করেন এলাকাবাসী। কিন্তু সরকারি জমির রামশীল খাগবাড়ি মৌজা নং ৬০,দাগ নং -১৭২৯ নিজের জায়গা দাবি করে নির্মাণকাজে বাঁধা দেন মিলন হালদার। এতে রাস্তা নির্মাণের কাজ বন্ধ হয়ে গেলে ভোগান্তি পড়ে বাসিন্দারা।

যজ্ঞেশ্বর চৌধুরী বলেন, বর্ষা মৌসুমে চলাচলের সময় প্রায় ২০০পরিবার পানি বন্দি হয়ে ভোগান্তি হওয়ার কারনে আমার ৮০০ফিট জমির ওপর দিয়ে একটি রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেই। ইতিমধ্যে মাটি ফেলার কাজও শুরু করি। কিন্তু মিলন হালদার নিজের জায়গা দাবি করে রাস্তাটির কাজ করতে দিচ্ছেন না। এমনি আদালতেও একটি মিথ্যা মামলা করেছেন। এতে চরম বিপাকে পড়তে হচ্ছে। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ দ্রুত যাতে সড়কটি নির্মাণ করে ভোগান্তি কমানোর জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন তিনি সহ এলাকার জনগণ।

যজ্ঞেশ্বর চৌধুরী তিনি আরো বলেন, রাস্তাটি সরকারি জায়গার উপর দিয়ে ৩০০ফিট হয়ে আমাদের জমির ওপর দিয়ে করা হচ্ছে। রাস্তাটি হলে এখানকার মানুষের উপকার হবে। রাস্তাটির কিছু অংশ সরকারি খাস জমির ওপর দিয়ে যাচ্ছে। মিলন হালদার সরকারি খাস জমি আনুমানিক দীর্ঘ ৫০বছর ধরে ভোগদখল করেন। তিনি তা নিজের জমি দাবি করে রাস্তাটির কাজ বন্ধ করে দেন। আমি প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই, দ্রুত বিষয়টি সুরাহা করে রাস্তা নির্মাণের সকল বাঁধা যেন দূর করা হয়।

এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে অভিযুক্ত মিলন হালদার সঙ্গে যোগাযোগে চেষ্টা করা হলেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করার সম্ভব হয়নি। এলাকার জনগণ জেলা প্রশাসক সহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন।

সাংবাদ পড়ুন ও শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2022 Sumoyersonlap.com

Design & Development BY Hostitbd.Com

কপি করা নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ।